হোয়াটসঅ্যাপের নতুন নীতিমালা গ্রহণ না করলে যা হবে!


হোয়াটসঅ্যাপ তাদের ওয়েবসাইটগুলোর একটি FAQ তে তাদের "নতুন নীতিমালা গ্রহণ  করেনি", এমন "ব্যবহারকারীদের" কী হবে সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছে। ১৫ ই মে থেকে  এর কার্যকারিতা আরও সীমাবদ্ধ করা হবে বলে তারা জানিয়েছে এবং ব্যবহারকারীরা আর অ্যাপ্লিকেশন থেকে বার্তা পাঠাতে বা পড়তে পারবেন না। তারা কল এবং নোটিফিকেশন পেতে সক্ষম হবেন, তবে এটি "অল্প সময়ের জন্য" সম্ভব হবে। Tech Crunch এর সাথে কথা বলে সংস্থাটি নিশ্চিত করেছে যে, এই সময়কাল কয়েক সপ্তাহ অবধি অব্যাহত থাকবে। 

নতুন নীতিমালা নিয়ে কিছু ব্যবহারকারীর মধ্যে বিতর্ক দেখা দিয়েছে, যারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যে, এটি হোয়াটসঅ্যাপকে তার মূল বার্তা এপ্লিকেশন ফেসবুকের সাথে তাদের ব্যক্তিগত বার্তাগুলি প্রকাশ করে দিতে সক্ষম হবে। তবে, হোয়াটসঅ্যাপে ব্যক্তিদের মধ্যে থাকা বার্তাগুলি এন্ড টু এন্ড এনক্রিপ্ট করা, তাই তাদের পাঠানো বার্তাগুলি কেবল যাদেরকে পাঠানো হবে শুধু তারাই দেখতে পারবে। নতুন নীতিমালা যা সম্পর্কিত তা হলো, কোনো ব্যবসায়ের কাছে পাঠানো বার্তা  ফেসবুক সার্ভারগুলোতে সঞ্চিত থাকতে পারে এবং সেই ডেটা বিজ্ঞাপনের জন্য ব্যবহৃত হতে পারে। এখানে উল্লেখ্য, হোয়াটসঅ্যাপ ২০১৬ সাল থেকে ফেসবুকের সাথে ফোন নম্বরগুলোর মতো কিছু ব্যক্তিগত তথ্য ভাগ করে আসছে। 

জবাবে, হোয়াটসঅ্যাপ ঘোষণা করেছিল যে নতুন নীতিমালা প্রবর্তন করতে বিলম্ব হবে, যা মূলত ৮ ই ফেব্রুয়ারি কার্যকর হওয়ার কথা ছিল। গত সপ্তাহে, হোয়াটসঅ্যাপ তার ব্যবহারকারীদের কাছে নতুন নীতিমালা ব্যাখ্যা করার প্রয়াসে অ্যাপ্লিকেশনটির অভ্যন্তরে একটি ব্যানার অন্তর্ভুক্ত করে যা ব্যবহারকারীদের নতুন নীতিটির ব্যাখ্যা দিবে। 

ফেসবুকের মালিকানাধীন মেসেজিং পরিসেবা বলেছে যে, ১৫ই মে নতুন শর্তাদি গ্রহণ না করলেও এটি কোনো অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলবে না এবং ব্যবহারকারীরা তখনও নতুন নীতিমালা গ্রহণ করতে সক্ষম হবেন। তবে এটি একই সাথে সতর্ক করে দেয় যে, সাধারণত ১২০ দিন ধরে নিষ্ক্রিয় থাকার পরে অ্যাকাউন্টগুলো মুছে দেওয়া হবে।


সূত্রঃ The Verge 

Post a comment

0 Comments